বিজ্ঞাপন

বৌভাতের ভোজ সাড়লেন গজরাজ, অবাক কান্ড মালবাজারে

বউভাতের জন্য ঘরের মধ্যে রাখা ছিল চাল, ডাল, সবজি। হঠাৎ জানালা ভেঙে হাজির গজরাজ। খিদের চোটে যে নিমেষে গায়েব যাবতীয় রান্নার জিনিস। এই কাণ্ডে মাথায় হাত পাত্রপক্ষের।

ডুয়ার্সে হাতির দেখা পাওয়া আশ্চর্য্যজনক কিছু নয়। কিন্তু তাই বলে বিয়েবাড়িতে ঢুকে বৌভাতের খাবার সাবাড় করা কিন্তু সত্যি আশ্চর্যের বিষয়। এমন এক ঘটনার সাক্ষী রইল মালবাজার। অতিথিদের আগেই খাবার খেয়ে নিল এক দাঁতাল।

বিজ্ঞাপন

বউভাতের জন্য ঘরের মধ্যে রাখা ছিল চাল, ডাল, সবজি। হঠাৎ জানালা ভেঙে হাজির গজরাজ। খিদের চোটে যে নিমেষে গায়েব যাবতীয় রান্নার জিনিস। এই কাণ্ডে মাথায় হাত পাত্রপক্ষের। এই ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে মালবাজারে। এদিকে অতিথিদের কি খাওয়ানো হবে তা নিয়ে চিন্তায় পরে যায় পাত্রের পরিবার। খাবারের খোঁজে উত্তরবঙ্গের গ্রামে হাতির হানা নতুন নয়। প্রায়ই কখনও র‌্যাশনের দোকানে, কখনও আবার মিডডেমিলের চাল-ডালের ভান্ডারে, আবার কখনও গৃহস্থ বাড়ির মজুত খাবারের খোঁজে হাজির হয় গজরাজ।

জানা গিয়েছে, অনুষ্ঠান বাড়ির জানলা ভেঙে বৌভাতের জন্য সম্পূর্ণ খাবার সাবাড় করে নিল দাঁতাল। তাই বৌভাতের আয়োজন নিয়ে চিন্তায় পড়ে যান বরের পরিবার। মালবাজার মহকুমার মেটেলি ব্লকের গরুমারা জঙ্গল সংলগ্ন দক্ষিণ ধূপঝোড়া এলাকার ঘটনাটিতে হাতির হানায় জখমও হয়েছেন একজন। এখানে পর্যটকদের আনাগোনাও রয়েছে। তাই এর মধ্যে হাতির আগমণ কিন্তু বেশ চিন্তায় ফেলে দিয়েছে সকলকেই।

বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে গরুমারা জঙ্গল থেকে একটি হাতি দক্ষিণ ধূপঝোরা এলাকায় বেরিয়ে চলে যায়। খাবারের লোভে স্থানীয় জিতেন রায়ের বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায় সে। হাতির হানার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় বন সুরক্ষা কমিটির সদস্য সহ বনকর্মীরা। এদিকে সেসময় গাড়িতে একাই বসেছিলেন চালক ইমরান। হাতিটি খাওয়ার পর বেরিয়ে ছুটে যায় বন দপ্তরের গাড়িটির দিকে। তখনই শুঁড় দিয়ে গাড়ির সামনে আঘাত করে। গুরুতর জখম হয়ে পড়েন চালক। নিয়ে যাওয়া হয় মাল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে।

ধুপঝোরা-২ নম্বর যৌথ বন সুরক্ষা কমিটির কোষাধক্ষ্য হরিপদ রায় বলেন, ‘হাতিটি গাড়িটির সামনে আক্রমণ করে। চালক ইমরান আলি বর্তমানে চিকিৎসাধীন। যৌথ বন ও সুরক্ষা কমিটির মাধ্যমেই এই গাড়িটিকে এলাকায় টহলদারির জন্য রাখা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন



Leave a Reply

বিজ্ঞাপন
Back to top button